খুবই মূল্যবান ১০ টি পড়াশোনা করার সঠিক নিয়ম 2024

খুবই মূল্যবান ১০ টি পড়াশোনা করার সঠিক নিয়ম 2024
খুবই মূল্যবান ১০ টি পড়াশোনা করার সঠিক নিয়ম 2024

খুবই মূল্যবান ১০ টি পড়াশোনা করার সঠিক নিয়ম 2024

আপনি যদি ভালভাবে পড়াশুনা করতে চান তাহলে আমি এখানে খুবই মূল্যবান ১০ টি পড়াশোনা করার সঠিক নিয়ম 2024 নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব। 

ফ্রেশারদের চাকরি পাওয়ার সহজ উপায়ঃঃ ফ্রেশারদের চাকরি পাওয়ার সহজ উপায় । সেরা টিউটোরিয়াল 2024

০১. নিজের প্রতি আত্মবিশ্বাস বাড়ানঃ 

খুবই মূল্যবান ১০ টি পড়াশোনা করার সঠিক নিয়ম 2024 এর মধ্যে প্রথমেই আপনাকে নিজের প্রতি আত্মবিশ্বাস বাড়াতে হবে। আত্মবিশ্বাস যদি বাড়াতে পারেন তাহলে কঠিন কাজও আপনার কাছে সহজ মনে হবে। নিজের উপরে সবসময় আস্থা রাখবেন৷‘পারবেন না, আপনাকে দিয়ে কোন কাজ হবে না’এই সমস্ত চিন্তা ভাবনা মাথা থেকে একেবারে ঝেড়ে ফেলে দিতে হবে, এই সমস্ত চিন্তাগুলো যদি আপনি করতে থাকেন, তাহলে আপনার লাভের থেকে ক্ষতি বেশি পরিমাণে হবে তাই বিষয়টি খেয়াল রাখবেন।

পড়াশোনা করার ক্ষেত্রেও বিষয়টা একই রকমের। আপনার মনের মাঝে যদি বারবার ফেল করার চিন্তা ভাবনা থেকে থাকে, তাহলে কিন্তু আপনার নিজের প্রতি আত্মবিশ্বাস অনেকটাই কমে যাবে। সব সময় চেষ্টা করবেন যেকোন কাজই হোক না কেন আত্মবিশ্বাস বাড়ানোর জন্য। নিজের প্রতি যদি নিজের আত্মবিশ্বাস না থাকে তাহলে কিন্তু কোন কাজেই আপনি সফল হতে পারবেন না।

[সুপার সাজেশন] ১৯ তম শিক্ষক নিবন্ধন প্রস্তুতি | ১৯ তম শিক্ষক নিবন্ধন সার্কুলার 2024

০২. পড়াশুনায় নিয়মিত হবেনঃ 

১০ টি পড়াশোনা করার সঠিক নিয়ম এর মধ্যে সবচেয়ে মূল্যবান নিয়মটি হলো পড়াশুনায় নিয়মিত হওয়া। আপনি যদি পড়াশোনায় নিয়মিত না হন তাহলে আপনি যতই যা কিছু করেন না কিন্তু কোনটাই কাজে আসবে না, আপনি প্রতিদিনের বাড়ির কাজ প্রতিদিন করবেন প্রতিদিন ক্লাসে যাবেন।যতটা পরিমাণে সম্ভব হয় আপনি ক্লাসে উপস্থিত থাকার চেষ্টা করবেনন।সব থেকে ভাল হয়ে আপনি যদি প্রত্যেকটা ক্লাসে উপস্থিত থাকতে পারেন।

আপনি যদি কোন কারণে একটা ক্লাস মিস করে ফেলেন, তাহলে দেখা যাবে পরবর্তী ক্লাসে স্যার কিংবা ম্যাডামেরা যা পড়াবে তা আপনি কিছুই বুঝতে পারবেন না।এতে করে কিন্তু ধারাবাহিকতা অনেকটাই নষ্ট হয়ে।তাই আপনি নিয়মিতভাবে ক্লাস করার চেষ্টা করবেন। নিয়মিত ক্লাস করবেন, অ্যাসাইনমেন্ট/হোমওয়ার্ক/প্রেজেন্টেশন যেসমস্ত কাজগুলো রয়েছে সব সম্পূর্ণ করবেন।

০৩. নিয়মমাফিক রুটিন তৈরি করবেনঃ 

নিয়মমাফিক রুটিন তৈরি করাও খুবই মূল্যবান ১০ টি পড়াশোনা করার সঠিক নিয়ম 2024 এর মধ্যে অন্যতম। আপনি আপনার সুবিধামতো একটা রুটিন তৈরি করে নিতে পারেন। রুটিন তৈরি করার সময় একটা বিষয়ে সব থেকে বেশি গুরুত্ব দেবেন সেটা হল আপনি যখন রুটিন তৈরি করবেন তখন আপনার কাছে যে সাবজেক্টটা বেশি কঠিন মনে হবে সেটা সবার উপরে রাখবেন এবং সেই সাবজেক্ট এর উপরে বেশি সময় দেওয়ার চেষ্টা করবেন। যে সাবজেক্টটি আপনি কম বোঝেন বা আপনার কাছে কঠিন মনে হয় সেই সাবজেক্ট এর উপরে একটু বেশি সময় দেওয়ার চেষ্টা করবেন।

আপনি যে সাবজেক্টটি ভালো বোঝেন বা আপনার কাছে সহজ মনে হয় সেই সাবজেক্টের জন্য একটু কম সময় রাখতে পারেন কিন্তু আবার সেটা বেশি কম হয়ে না যায় যেন সেদিকেও খেয়াল রাখবেন।

বাংলা ভাষার উদ্ভব | বাংলা সাহিত্যের যুগ বিভাগ | চর্যাপদ | বিসিএস প্রিলিমিনারি টেস্টঃ বাংলা ভাষার উদ্ভব | বাংলা সাহিত্যের যুগ বিভাগ | চর্যাপদ | বিসিএস প্রিলিমিনারি টেস্ট

রুটিন তৈরি করার সময় আপনারা একাডেমিক পড়াশোনার পাশাপাশি, গান শোনার জন্য একটু সময় রাখতে পারেন এতে করে আপনার মন ফ্রেশ থাকবে।

০৪. মোটিভেশনলান বই সাথে রাখাঃ 

যেকোন মোটিভেশনাল বই সাথে রাখাই হচ্ছে পড়াশোনা করার সঠিক নিয়ম এর মধ্যে একটি। আপনি যখন ক্লাসে যাবেন তখন আপনি আপনার রুটিন অনুযায়ী সেই বইগুলোর সাথে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করবেন।অন্য মানুষের বইয়ের উপরে কখনোই ভরসা করতে যাবেন না।আপনার কাছে যদি নিজের একটা বই থাকে তাহলে সেক্ষেত্রে যে সুবিধা গুলো পাবেন তা হল, প্রয়োজন হলে দরকারি লাইনগুলো দাগিয়ে রাখতে পারবেন কিংবা নোট করে রাখতে পারবেন।

তবে আপনারদের ক্লাসের বইগুলো যদি অনেক ভারী হয়ে থাকে সেক্ষেত্রে আপনি পিডিএফ কপি সাথে রাখতে পারেন। কিংবা যেদিন যে অধ্যায় পড়ানো হবে সেই অধ্যায়ের ফটোকপি সঙ্গে নিয়ে যেতে পারেন। বড় অথবা ভারী বইকে ভেঙে অধ্যায় অনুযায়ী ভাগ করেও রেখে দিতে পারেন।

১৮ তম নিবন্ধনের লিখিত পরীক্ষার সাজেশন ২০২৪ | এক্সক্লুসিভ সকল বিষয়ঃ ১৮ তম নিবন্ধনের লিখিত পরীক্ষার সাজেশন ২০২৪ | এক্সক্লুসিভ সকল বিষয়

০৫. শিক্ষকদের মেনে চলাঃ 

শিক্ষকদের মেনে চলাও ১০ টি পড়াশোনা করার সঠিক নিয়ম এর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি উপায়। শিক্ষকদের প্রত্যেকটা কথা ভালোভাবে মনোযোগ দিয়ে শুনবেন, তাদের সকল দিক নির্দেশনা মেনে চলবেন।শিক্ষক যে বিষয়টি সম্পর্কে আপনাকে পড়াবে সেই বিষয়টি সম্পর্কে ভালোভাবে বুঝে নেওয়ার চেষ্টা করবেন।

শিক্ষক যদি কোন বই/ আর্টিকেল/ মুভি/ জার্নালের রেফারেন্স দিয়ে থাকেন, তবে সেগুলোকে সংগ্রহ করে রাখার চেষ্টা করবেন। কোন সমস্যা হলে তাকে জিজ্ঞেস করবেন।

০৬. দরকারি জিনিস মুখস্থ করাঃ 

দরকারি জিনিস মুখস্থ করা হচ্ছে পড়াশোনা করার সঠিক নিয়ম এর মধ্যে কমন একটি উপায়। পড়াশোনা করার মানে কিন্তু তোতা পাখির মত মুখস্ত করে সেটা খাতায় লেখা নয়। শুধু মুখস্ত না করে আপনাকে বুঝে বুঝে,তারপরে পড়াশোনা করতে হবে। তারপরে ও কিছু বিষয় রয়েছে যেগুলো আপনাকে অবশ্যই মুখস্ত করা লাগবে যেমন মনে করুন–

  • টাইটেল  অথবা নাম
  • বানান
  • দরকারি সাল
  • কোনকিছুর সংজ্ঞা

ঐতিহাসিক ঘটনা এই সমস্ত জিনিসগুলো মুখস্থ করা লাগে। এগুলো যদি আপনি ভালোভাবে মুখস্ত করতে পারেন, তাহলে আপনার যখন দরকার হবে এগুলো তখন আপনার মনে করতে আর খুব বেশি একটা কষ্ট হবে না।

০৭. মার্ক করা অত্যাবশ্যকঃ 

গুরুত্বপূর্ণ লাইন, টার্ম সকল বিষয়গুলো আপনি অবশ্যই মার্ক করে রাখবেন। এজন্যই ইহাকে পড়াশোনা করার সঠিক নিয়ম এর জন্য আখ্যায়িত। আপনি যদি ইচ্ছা করেন তাহলে রঙের কালি এসব ক্ষেত্রে ব্যবহার করতে পারেন৷আবার স্টিকি নোট কিংবা আঠালো কাগজ ও ব্যবহার করতে পারেনন। যেমন মনে করুন, কোন চাপ্টারে কি কি বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে, সেটাকে আপনি একটা আঠালো কাগজে পয়েন্ট আকারে লিখে চাপ্টারের উপরে কোনার দিকে এঁটে  রেখে দিতে পারেন।

০৮. গুছিয়ে রাখবেনঃ 

পড়াশুনার শেষে বইপত্র গুছিয়ে রাখাও পড়াশোনা করার সঠিক নিয়ম। পরীক্ষার সময় সকল কোর্সের ম্যাটারিয়াল গুলো খুজে পাওয়ার জন্য প্রথম থেকে সেগুলোকে ভালোভাবে গুছিয়ে রাখবেন। কোর্স প্রতি ফাইল বানিয়ে রাখতে পারেন এর জন্য। কম্পিউটারের ভেতরে একটি আলাদাভাবে ফোল্ডার তৈরি করে নিতে পারেন। আবার ইচ্ছে করলে আপনি সেটাকে প্রিন্ট করে আপনার কাছে রাখতে পারেন।

০৯. সামারি পড়তে পারেনঃ 

সামারি পড়াও পড়াশোনা করার সঠিক নিয়ম এর মধ্যে অন্যতম একটি উপায় হিসেবে বিবেচিত। টেক্সট বই অবশ্যই আপনাকে বাধ্যতামূলকভাবে পড়তে হবে, এই বিষয়ের উপরে কখনো অবলা করবেন না। আর সেজন্য যে কখনো আপনি কখনোই সামারি পড়তে পারবেন না, এই কথাটি কিন্তু আপনাকে বলছি না। আপনি ইচ্ছা করলে অনলাইন থেকে সামারী পড়তে পারেন। তবে অবশ্যই চেষ্টা করবেন একটা ওয়েবসাইট থেকে না পড়ে চার থেকে পাঁচটি কিংবা তার থেকে বেশি ওয়েবসাইট থেকে সামারি পড়ার জন্য।

কেননা বিভিন্ন ওয়েবসাইটে বিভিন্ন রকম ভাবে লেখা থাকে। একটা ওয়েবসাইটের মধ্যে গিয়ে দেখতে পারবেন অনেক ছোট ও টু-দ্য-পয়েন্ট আকারে লেখা রয়েছে, আবার অন্য একটা ওয়েবসাইটের মধ্যে গিয়ে দেখবেন একই টপিক সেটা আবার একটু ভিন্নভাবে একটু বড় করে সামারি করে লেখা রয়েছে।সুতরাং আপনাকে সামারি পড়ার সময় বিভিন্ন ওয়েবসাইট থেকে আইডিয়া নিতে হবে। ইংরেজী গল্প, কবিতা, উপন্যাসের সামারির জন্য কয়েকটি ভালো ওয়েবসাইট রয়েছে সেগুলোর লিস্ট নিচে দেওয়া হল –

১০. প্রযুক্তিনির্ভর না হওয়াঃ 

প্রযুক্তিনির্ভর না হওয়া হলো পড়াশোনা করার সঠিক নিয়ম এর মধ্যে একটি যা বর্তমান যুগের জনপ্রিয় একটি উপায়। বর্তমান সময়ে এই ডিজিটাল যুগে আপনাকে ইন্টারনেট থেকে বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে জ্ঞান আহরণ করতে।পাঠ্য বইয়ের সঙ্গে সঙ্গে আপনি বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া মাধ্যম থেকেও কিন্তু পড়ালেখা বিষয়ক কিছু জানতে পারবেন ও শিখতে পারবেন।তবে প্রযুক্তিকে সব সময় কাজে না লাগানোই আপনার জন্য ভালো হবে।

আপনি যখন পড়তে বসবেন তখন যতটা সম্ভব পারেন ইন্টারনেট থেকে দূরে থাকার চেষ্টা করবেন৷হয়তোবা দেখা যাবে আপনি গুগল কিংবা ইউটিউবে কোন বেশি সম্পর্কে চার্জ করতে গেলেন, তখন দেখা যাবে আপনার মনোযোগ নিজে থেকে অন্য কোন বিষয়ের উপরে চলে যাবে যেমন, Instagram অথবা ফেসবুকের উপরে চলে যাবে ।এর ফলে দেখা যাবে, সোশ্যাল মিডিয়াতে সময় নষ্ট করতে করতে আপনি আর পড়ার জন্য সময় পাবেন না যার ফলে আপনার পড়ালেখার ক্ষতি হবে। সেজন্য অবশ্যই চেষ্টা করবেন ইলেক্ট্রনিক গ্যাজেট হতে যতটা সম্ভব পারেন দূরে থাকার জন্য।

প্লে-স্টোরে মনোযোগ ধরে রাখার জন্য কিছু অ্যাপস পাবেন সেগুলো আপনি আপনার ফোনে ইন্সটল করে রাখতে পারেন। এই সমস্ত অ্যাপসগুলোর কাজ হল আপনাকে স্মার্টফোন/ কম্পিউটার হতে যতটা সম্ভব দূরে রাখা।

অ্যাপসগুলো আপনাকে মূলত কয়েকটা কাজ দিবে, সেই কাজগুলো কমপ্লিট করার মাধ্যমে আপনি আপনার মনোযোগ বাড়াতে পারবেন। আপনার যদি বিশ্বাস না হয় তাহলে অ্যাপসগুলো নিজে একবার ব্যবহার করে দেখতে পারেন। অ্যাপসগুলোর নাম নিচে দেওয়া হল দেখে নিন।

  • Forest
  • Study Bunny
  • Flip
  • Focus Plant

আমাদের শেষ কথা

উপরিউল্লিখিত আলোচনার প্রেক্ষিতে বলা যায় যে, ২০২৪ সালে আমি ১০ টি পড়াশোনা করার সঠিক নিয়ম নিয়ে বিস্তারিত তথ্য উপাত্ত পেশ করেছি। পড়াশোনা করার জন্য নির্দিষ্ট কোন নিয়ম নেই। আপনি যদি মন দিয়ে পড়তে পারেন তাহলেই হবে। এক একজন স্টুডেন্ট এক এক রকম ভাবে পড়াশোনা করে থাকেন। উপরে যে নামগুলো সম্পর্কে আপনাদের বলা হয়েছে, সেগুলো খুবই সাধারণ কিছু নিয়ম, যেটা স্কুল কলেজ কিংবা বিশ্ববিদ্যালয়ে যেসকল ছাত্র-ছাত্রীরা রয়েছে তারা সকলেই অনুসরণ করতে পারবে। উপরে দেওয়ার নিয়ম গুলো যদি আপনি সঠিক ভাবে ফলো করে পড়াশোনা করেন, তাহলে আপনি অনেক কম পড়াশোনা করেও পাস করতে পারবেন নিশ্চিন্তে।

Visited 52 times, 1 visit(s) today