ঈদের নামাজ পড়ার নিয়ম

ঈদের নামাজ পড়ার নিয়ম সম্পর্কে

ঈদের নামাজ পড়ার নিয়ম :প্রিয় মুসলমান ভাই আসসালাম ওয়ালাইকুম। আশা করি আল্লাহের রহমতে সবাই ভালো আছেন। আমিও ভালো আছি। আপনারা অনেকে জানতে চেয়েছেন ঈদের নামাজ পড়ার নিয়ম। মুসলমান ভাইরা বছরে ২ বার ঈদ পালন করে থাকে।দীর্ঘ ১মাস সিয়াম সাধনার পরে মুসলমান ভাইরা ঈদুল ফিতর উদযাপন করে থাকে। এর ঠিক আড়াই মাস পরে ঈদুল আযহা পালন করে থাকে। ঈদের নামাজ বছরে ২ বার হওয়ার কারণে অনেকে জানেন না ঈদের নামাজ কিভাবে পড়তে হয়। এইজন্য অনেকে গুগল , ফেইসবুক অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া জানতে চান ঈদ এর নামাজ সম্পর্কে। তাই তাদের জন্য বিস্তারিত আলোচনা করা হলো।যাদের ঈদ মোবারক পিকচার দরকার তারা ঈদ মোবারক পিকচার 2024 পোস্ট দেখতে পারেন।

ঈদের নামাজ পড়ার নিয়ম : দীর্ঘ এক মাসের মধ্যে রহমতের দশ দিন ,মাগফিরাতের দশ দিন ওনাজাতের দশ দিন এই মোট ৩০ দিন মুসলিম জাতির কাছে শান্তির বার্তা নিয়ে এসেছিলো পবিত্র মাহে রমজান। মুসলমান ভাইরা সালাত ,ইবাদত-বন্দেগি ,সিয়াম সাধনা ,দোআ ও আল্লাহর কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করে এই মাস পালন করে থাকে। ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আযহা মুসলমানদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব। মুসলিম বিশ্বের মুসলমান ভাইরা প্রতি বছর দু’টি ঈদ উদযাপন করে।ঈদুল ফিতর সালাত আদায় করা ওয়াজিব। প্রতিবছর ঈদুল ফিতরের সালাত আদায় করতে হয়। বছরে ২ বার ঈদুল ফিতর সালাত আদায় করতে হয় তাই অনেকে ঈদুল ফিতর সালাত আদায় নিয়ম ভুলে যান। তাই ঈদের নামাজ পড়ার নিয়ম নিচে ব্যাখ্যা করা হলো।

ঈদের নামাজ পড়ার নিয়ম
ঈদের নামাজ পড়ার নিয়ম

ঈদের নামাজ পড়ার সময় যে সকল বিষয় খেয়াল রাখতে হবে

ঈদের নামাজ পড়ার নিয়ম : ঈদের নামাজ পড়ার ক্ষেত্রে অবশ্যয় খেয়াল রাখতে হবে যেন যে যেখানেই পড়েন না কেনো জামাতের সাথে পড়তে হবে। অনেকে খোলা জায়গা ,খোলা মাঠে ,ঈদগাহ ময়দানে অনেকে মসজিদে পড়ে থাকেন যে যেখানে পড়েন না কেন অবশ্যই জামাতের সঙ্গে পড়তে হবে। কুরআন হাদিস মতানুসারে প্রতি শুক্রবার জুমা নামাজ পড়ার জন্য যে সব শর্ত প্রযোজ্য ঈদের নামাজ পড়ার জন্য একই শর্ত প্রযোজ্য। তাই জামাত ছাড়া ঈদের নামাজ আদায় করা উচিত না।অনেকে আছেন ঈদের নামাজ পড়তে পারেন না তাই যারা ঈদের নামাজ পড়তে পারেন না তাদের ঈদের নামাজ পড়ার নিয়ম সম্পর্কে আলোচনা করতে পারেন।

ঈদের নামাজ পড়ার নিয়ম

ঈদের নামাজ পড়ার নিয়ম
ঈদের নামাজ পড়ার নিয়ম

বছরের ২ টি ঈদ এর নামাজ এই ২ টি নামাজের কোনোটিতে আজান বা ইকামত নেই।শুক্রবার জুমার নামাজের মতো ঈদের নামাজ একই ভাবে উচ্চ শব্দে কুরআনের আয়াত তেলোয়াতের মাধ্যমে ঈদের নামাজ আদায় করতে হয়। ঈদের নামাজ অন্যান্য নামাজের মধ্যে পার্থক্য অন্যান্য নামাজে কোনো তাকবীর দিতে হয় না ঈদের নামাজে অতিরিক্ত ছয়টি তাকবীর দিতে হবে।প্রথম রাকাতের নামাজের নিয়ম হলো ‘আল্লাহু আকবার’ বলে হাত বাঁধতে হবে। হাত বাধার পরে অতিরিক্ত তিন তাকবীর দিয়ে বিসমিল্লাহ বলে সূরা ফাতিহা পড়তে হবে। দ্বিতীয় রাকাতে সূরা ফাতিহা এর সাথে সূরা মিলাতে হবে সূরা মেলানোর পরে অতিরিক্ত তিনটি তাকবীর দিয়ে রুকুতে যেতে হবে।

ঈদের নামাজের নিয়ত

ঈদের নামাজ পড়ার নিয়ম : আমি ঈদুল ফিতরের দুই রাকাত ওয়াজিব নামাজ অতিরিক্ত ৬ তাকবিরের সঙ্গে এই ইমামের পেছনে কেবলামুখী হয়ে আল্লাহর জন্য আদায় করছি- ‘আল্লাহু আকবার

ঈদের নামাজ প্রথম রাকাত পড়ার নিয়ম

সঠিক ভাবে ঈদের নামাজ পড়ার নিয়ম সম্পর্কে আলোচনা করা হলো :

১। তাকবিরে তাহরিমা পড়া : ঈদের নামাজে প্রথম রাকাতে ঈদের নামাজের নিয়ত করতে হবে প্রথমে। এরপরে তাকবির তাহরীমা পরে ‘আল্লাহু আকবার’ বলে হাত বাঁধতে হবে।

২। সানা পড়তে হবে : যাদের সানা মুখস্থ আছে তারা সানা পড়তে হবে। যাদের সানা মুখস্থ নাই তাদের জন্য সানা নিচে দাওয়া হলো : সুবহানাকা আল্লাহুম্মা ওয়া বিহামদিকা ওয়া তাবারাকাসমুকা ওয়াতাআলা যাদ্দুকা ওয়া লা ইলাহা গাইরুকা।

৩। এরপরে অতিরিক্ত তিনটি তাকবির দেওয়া : প্রথম তাকবির থেকে দ্বিতীয় তাকবির এর মধ্যে তিন তাসবিহ পরিমাণ সময় বিরত থাকতে হবে। প্রথম ও দ্বিতীয় দুই হাত উঠিয়ে আবার ছেড়ে দিতে হবে। এরপরে তৃতীয় ধাপে তাকবির দিয়ে উভয় হাত বেঁধে নিতে হবে।

৪। চতুর্থ ধাপে আউজুবিল্লাহ-বিসমিল্লাহ পড়তে হবে। এর পরে সূরা ফাতিহা পড়তে হবে। সূরা ফাতিহা এর সাথে যেকোনো একটি সূরা মিলাতে হবে।অতঃপর অন্যান্য নামাজের মতো রুকু করতে হবে তারপরে সেজদা করতে হবে এভাবে সিজদার মাধ্যমে প্রথম রাকাত শেষ করতে হবে।

ঈদের নামাজ দ্বিতীয় রাকাত পড়ার নিয়ম

নিম্নে ঈদের নামাজ পড়ার নিয়ম সম্পর্কে আলোচনা করা হলো ।

১। ঈদের নামাজ দ্বিতীয় রাকাতে বিসমিল্লাহ পড়তে হবে। বিসমিল্লাহ পর সূরা ফাতিহা পড়তে হবে। এরপরে সূরা ফাতিহার শেষে কুরআনের যেকোনো একটি সূরা মিলাতে হবে।

২। অতিরিক্ত তিন তাকবির : সূরা ফাতিহার সাথে অতিরিক্ত তিনটি তাকবির দিতে হবে। প্রথম রাকাতে যেমন দুই তাকবির দুই হাত কাঁধ বরাবর উঠিয়ে ছেড়ে দিতে হবে। অতঃপর তৃতীয় তাকবির দিয়ে হাত বাঁধতে হবে।

৩।রুকু দাওয়া : এরপরে রুকুর তাকবির দিয়ে রুকুতে যেতে হবে।

৪। পরবর্তী ধাপ সেজদা আদায় করা ,সিজদা আদায় করার পরে তাশাহহুদ পড়া সাথে দোয়া মাসুরা পড়তে হবে এরপরে সালাম ফিরিয়ে নামাজ সম্পুন্ন করা।

সালাম ফিরিয়ে নামাজ শেষ করার পরে মসজিদের ইমাম সাহেব কিছু খান সময় খুতবা দেবেন আর মুসলমানরা এই খুতবা মনোযোগ সহকারে শুনবেন।

ঈদের নামাজে দুই রাকাত নামাজে ছয়টি অতিরিক্ত তাকবিরসহ আদায় করতে হয়।ঈদের নামাজে অতিরিক্ত ভুল হলে অর্থাৎ ওয়াজিব তাকবির কম বেশি হলে বা না দিলে সাহু সিজদা প্রয়োজন নেই।ঈদের নামাজ পড়ার নিয়ম যারা জানেন না তারা এই মাসআলা জেনে তারপর নামাজ পড়তে পারেন।

ঈদের নামাজ পড়ার নিয়ম জামাত সম্পর্কে মাসয়ালা

নিম্নে আরো কিছু ঈদের নামাজ পড়ার নিয়ম সম্পর্কে আলোচনা করা হলো ।

১ .এলাকার ধনী গরিব সব পেশার মুসলমান ভাইরা একই স্থানে ঈদের নামাজ পড়া ভালো। তবে চাইলে একাধিক স্থানে পড়া যাবে।

২ .কোনো কারণে যদি ঈদের নামাজ জামাতের সাথে না পড়তে পারেন অথবা নামাজ না পড়তে পারলে এজন্য নামাজ কাজা করতে হবে না.ঈদের নামাজের জন্য জামাত শর্ত তাই আপনাদের জামাত ঈদের নামাজ ছুটে যায় বা নামাজ কোনো কারণে নষ্ট হয় তবে কোনো ইমাম কে বলে তার পিছনে নামাজ পড়তে পারেন।

৩ .শাওয়ালের দ্বিপ্রহরের আগে কোনো কারণে যদি সালাত আদায় না করতে পারেন তবে চিন্তার কোনো কারণ নাই শাওয়ালের ২ তারিখ ঈদের সালাত আদায় করতে পারবেন। তবে ২ তারিখ এর পরে আর ঈদের নামাজ পড়তে পারবেন না।

৪ .অনেকে দেরি করে নামাজ পড়তে আসার কারণে প্রথম রাকাত না পেলে অথবা দ্বিতীয় রাকাতে সালাত পেলে সালামের পর যখন ওই ব্যক্তি ছুটে যাওয়া রাকাতের তখন প্রথমে সানা তারপরে আউজুবিল্লাহ ও বিসমিল্লাহ পড়ে সূরা ফাতেহা ও কেরাতের পর রুকুর পূর্বে তাকবির বলবে। সূরা ফাতেহার আগে নয়।

৫ .যদি কেউ ইমাম সাহেবকে তাকবির শেষ হওয়ার পরে পায়, তাহলে তিন ওয়াজিব তাকবির বলে নেবে। তারপর রুকু করলে, যদি বিশ্বাস হয় যে, ইমাম রুকু করতে হবে, তাহলে তাহরিমা বেঁধে দাঁড়িয়ে তাকবির বলবে, তারপর রুকু করবে। আর যদি ইমাম রুকু করতে না পারেন বা রুকু থেকে মাথা তুলে ফেলেন, তাহলে মুক্তাদিও তাহরিমা বেঁধে দাঁড়িয়ে রুকু করবে। রুকুর তাসবিহ বলতে সময় পেলে তাসবিহ পড়বে, না পেলে না। তাকবির শেষে তাকবির বাকি থাকলে তা ক্ষমায়োগ্য।

ঈদের নামাজ পড়ার নিয়ম সঠিকভাবে জেনে তারপর আদায় করা উচিত নতুবা নামাজে ভুল হতে পারে ।আপনারা যারা ঈদের নামাজ পড়ার নিয়ম জানেন না তারা আমাদের ওয়েবসাইট এর মাদ্দমে জানতে পারেন আবার মসজিদের ইমাম সাহেবের কাজ থেকে জেনে নিতে পারেন। 

Visited 56 times, 1 visit(s) today